বুধবার,

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

|

আশ্বিন ৭ ১৪২৮

XFilesBd

শিরোনাম

প্রধানমন্ত্রী ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করবেন আজ মুম্বাইয়ের ভবনধসে ১১ জনের মৃত্যু; আহত ৭ অবশেষে কারামুক্ত সাংবাদিক রোজিনা পাসপোর্ট জমার শর্তে জামিন পেলেন রোজিনা রোজিনার জামিনে প্রমাণিত হয়েছে আদালত সম্পূর্ণ স্বাধীন : ওবায়দুল কাদের দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২৮ জনের মৃত্যু দুর্যোগ ঝুঁকি প্রশমনে জনগণকে বেশি সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী যুদ্ধবিরতি চুক্তির পর ফিলিস্তিনে বিজয় মিছিল পল্লবীতে খুনের মামলার আসামি মানিক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত গাজায় যুদ্ধবিরতি মানতে বাধ্য হলো ইসরাইল রোজিনার ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা হবে : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী সাংবাদিকদের ধৈর্য ধরার আহবান ওবায়দুল কাদেরের রোজিনা ইসলামের মামলা ডিবিতে হস্তান্তর সাংবাদিক রোজিনার রিমান্ড নামঞ্জুর শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস কাল লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল ২৩ মে পর্যন্ত নিজ নিজ অবস্থানে থেকে ঈদ উদযাপনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ নেই: স্বরাষ্টমন্ত্রী আজ থেকে সড়কে গণপরিবহন চালু শিবচরে বাল্কহেড ও স্পিডবোট সংঘর্ষ, নিহত ১৭ অতিরিক্ত ডিআইজি হলেন হারুন-অর-রশিদ করোনায় দরিদ্রদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ১০ কোটি টাকা ব্যক্তিগত অনুদান রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে মৃদৃ ভূমিকম্প অনুভূত করোনা মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে : ওবায়দুল কাদের পুলিশ ৬ ডায়েরি উদ্ধার করেছে মুনিয়ার ফ্ল্যাট থেকে মে মাসেই আসতে পারে রাশিয়ার টিকার ৪০ লাখ ডোজ করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশকে সার্বিক সহযোগিতা দিতে আগ্রহী চীন ‘মামুনুলকে জামিন দিলে আবারও জ্বালাও-পোড়াও হতে পারে’ ২৬ বছরের ইতিহাসে ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা আজ চলমান লকডাউন থাকবে আরও ৭ দিন কুয়েতে পাপুলের কারাদণ্ড আরও ৩বছর বাড়লো দোকানপাট-শপিংমল খোলা থাকবে রাত ৯টা পর্যন্ত কওমি মাদ্রাসায় সব ধরনের রাজনীতি নিষিদ্ধ করোনা মোকাবেলায় ৫৭৪ কোটি ৯ লাখ টাকা বরাদ্দ: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী করোনাকালীন সহায়তা পাবেন দুই হাজার সাংবাদিক ঈদের জামাত বিষয়ে সিদ্ধান্ত ২৭ এপ্রিল স্বাস্থ্যবিধি না মানলে আবারও কঠোর লকডাউন : ওবায়দুল কাদের আগামী মে মাসে ২১ লাখ টিকা পাবে বাংলাদেশ করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ ১০২ জন মৃত্যুর রেকর্ড দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবে প্রধানমন্ত্রী হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক গ্রেফতার দেশে করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ ১০১ জনের মৃত্যু বিশ্বব্যাপী করোনার তাণ্ডব থামছে না শনিবার থেকে ৫টি দেশে প্রবাসীদের জন্য বিশেষ ফ্লাইটে চালু খালেদা জিয়া চিকিৎসা নেবেন বাসায় থেকেই সামুদ্রিক জলসীমায় ৬৫ দিন মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা বাবা-মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় সমাহিত মতিন খসরু খালেদা জিয়াকে ‘হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে’ দেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১০ হাজার ছাড়িয়েছে চিরায়ত বৈশাখের উৎসবে নেই প্রাণের উন্মাদনা দেশে ৮ দিনের সর্বাত্মক লকডাউন শুরু একুশে টেলিভিশনের একুশতম জন্মদিন আজ করোনা পরিস্থিতিতে বাংলা বর্ষবরণ উদযাপন হবে প্রতীকী তারাবীসহ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজে ২০ জন মুসল্লি অংশ নিতে পারবে করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড প্রখ্যাত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক আর নেই খালেদা জিয়া করোনা আক্রান্ত : স্বাস্থ্য অধিদফতর চলমান লকডাউনের ধারাবাহিকতা চলবে ১২ ও ১৩ এপ্রিল : ওবায়দুল কাদের করোনায় দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৭৭ জনের মৃত্যু ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউনে যাচ্ছে সরকার-জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী করোনায় কর্মহীন মানুষদের জন্য ৫৭২ কোটি টাকা বরাদ্দ মানুষকে বাঁচাতে আরো কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের আভাস প্রধানমন্ত্রীর আগামীকাল ৯-৫টা শপিংমল-দোকান খোলা থাকবে বাংলাদেশকে এক লাখ ডোজ করোনার টিকা উপহার দিলেন ভারতীয় সেনাপ্রধান দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড টেক্সাসেই দাফন হবে সেই বাংলাদেশি পরিবারের লাশ জনসমাগম এড়িয়ে ভার্চুয়ালি নববর্ষ উদযাপন করতে হবে ভ্যাকসিন নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে করোনায় আক্রান্ত বুধবার থেকে সিটি করপোরেশন এলাকায় বাস চলবে : ওবায়দুল কাদের করোনা মোকাবেলা করাই সরকারের চ্যালেঞ্জ : সেতুমন্ত্রী করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ও শনাক্তের রেকর্ড রমজানে অফিস সকাল ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা এসএসসির ফরম পূরণ স্থগিত লকডাউনের কারণে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখা উন্নয়নের পূর্বশর্ত : প্রধানমন্ত্রী করোনায় একদিনে দেশে শনাক্তের রেকর্ড ৭০৮৭, মৃত্যু ৫৩ আগামীকাল থেকে গণপরিবহন বন্ধ : ওবায়দুল কাদের সংসদ সদস্য আসলামুল হক মারা গেছেন এক সপ্তাহের লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি জাপানের প্রধানমন্ত্রী সুগা আগামী মাসে যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাচ্ছেন সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে নির্বাচন হবে : ওবায়দুল কাদের নোভাভ্যাক্স ভ্যাকসিন মারাত্মক কোভিডের বিরুদ্ধে অত্যন্ত কার্যকরী দেশের প্রতিটি উপজেলায় বিশেষজ্ঞ চক্ষু চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দেয়া হবে : প্রধানমন্ত্রী বিএনপি’র ৭ মার্চ পালনের ঘোষণা রাজনৈতিক ভন্ডামি ছাড়া আর কিছুই নয় : ওবায়দুল কাদের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ প্রতিবেশী দেশের সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে-প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করোনার ভ্যাকসিন নিলেন প্রধানমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু ২৪ মে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কবে থেকে কীভাবে খোলা যায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ঢাবির ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া শুরু ৮ মার্চ টিকাদান কার্যক্রমে ৪শ’ কোটি মার্কিন ডলার সহযোগিতার অঙ্গীকার বাইডে রমজানে ভোগ্যপণ্যের দাম যৌক্তিক পর্যায়ে রাখার আশ্বাস ব্যবসায়ীদের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে ঢাকার আকাশে উড়বে ৮০০ ড্রোন নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশের দল ঘোষণা নোয়াখালির কোম্পানীগঞ্জে কাদের মির্জা-বাদল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানিভাতা ২০ হাজার টাকা করার ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর রবির শীর্ষ কর্মকর্তাদের জরুরি তলব বিএসইসির সারাদেশে এ পযর্ন্ত করোনা টিকা নিয়েছেন ১১ লক্ষাধিক মানুষ ইয়েমেনে দেড় কোটি মানুষ খাদ্য সংকটে পড়বে: জাতিসংঘ সশস্ত্র বাহিনীকে বাধা দিলে ২০ বছর পর্যন্ত কারদণ্ড পটিয়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে কাউন্সিলর প্রার্থীর ভাই নিহত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আবারও বাড়বে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঢাকা টেস্টে দ্বিতীয় দিনেই চাপে বাংলাদেশ আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধ হবে হাইকোর্ট নির্দেশ দিলে: তথ্যমন্ত্রী সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করেই শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরানো হবে : শিক্ষামন্ত্রী শীতের আবহ আরও সাত দিন থাকতে পারে সারাদেশে এ পর্যন্ত করোনা টিকা নিলেন ৩ লাখ ৩৭ হাজার ৭৬৯ জন মানুষ আদর্শবিহীন রাজনীতি টিকে থাকতে পারে না :প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে তৃতীয় দিনে টিকা নিলেন ১ লাখ ৮২ জন যেকোনো সময় খুলবে স্কুল, টিকা নিতে হবে শিক্ষকদের ভিন্ন ইমেজের সিনেমায় তাহসান বিএনপির আন্দোলন হবে কোন বছর, জানতে চান ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনার দূরদর্শিতার কারণেই মাত্র ৫ ডলারে ভ্যাকসিন পাচ্ছেন বাংলাদেশের মানুষ : আইনমন্ত্রী সারাদেশে প্রথম দিনে টিকা নিলেন ৩১ হাজার ১৬০ জন আগামীকাল সারাদেশে টিকা বিতরণ শুরু, এখন পর্যন্ত নিবন্ধন হয়েছে ৩ লাখ ২৮ হাজার আন্তর্জাতিক টেলিভিশন চ্যানেল আল-জাজিরায় প্রচারিত ‘All the Prime Minister’s Men’ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদলিপি স্বশিক্ষায় শিক্ষিত এক শিল্পীর জীবনকথা মোবাইল অতি-আসক্তি : চক্ষু হাসপাতালে বাড়ছে শিশু রোগী কৃষি ভিত্তিক শিল্প আমরা গড়ে তুলতে চাই-প্রধানমন্ত্রী টিকা বিতরণে এখনও উন্মুক্ত হয়নি মোবাাইল এ্যাপ ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১২ জনের মৃত্যু শিশুর হাতে স্মার্টফোন দেওয়ার পূর্বে করণীয় কি ? রাশিয়ার তৈরি করোনা ভ্যাকসিন ৯২ শতাংশ কার্যকর মিয়ানমারের নতুন করে নিয়োগ পেলো এগারো মন্ত্রী সাকিবের খেলা নিয়ে যা বললেন কোচ শব্দ করে পড়ার অভ্যাস আমাদের ঐতিহ্য : ড. আরেফিন সিদ্দিক চীনে তৈরি হচ্ছে ভুয়া ভ্যাকসিন’,গ্রেফতার ৮০ বাংলাদেশ আশা করছে মিয়ানমারে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া সমুন্নত থাকবে মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া এখন সময়ের দাবি বাংলাদেশের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিবের চিঠি বাংলাদেশের কাছে করোনা টিকা চায় হাঙ্গেরি ও বলিভিয়া তীব্র শীতের কবলে দেশ মিরপুরে বেতন-ভাতা পরিশোধের দাবিতে পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ ফলাফলের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জমায়েত নিষিদ্ধ

প্রতারক স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করে বিচার চাইছেন এক স্বামী

প্রকাশিত: ১৪:০৭, ২২ আগস্ট ২০২১

প্রতারক স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করে বিচার চাইছেন এক স্বামী

ছবি: সংগৃহিত

প্রেম করে বিয়ে। অতপর কিছুদিন যেতে না যেতেই টাকার জন্য চাপাচাপি। তারপর শুরু হয় রেষারেষি। স্বামী পরে বুঝতে পারেন, তিনি খপ্পরে পরেছেন। পেছনে আছে কোনো চক্র। কাছাকাছি সময়ে স্বামী স্ত্রী দু’জনই একে অপরের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন। 

বলছিলাম, সম্প্রতি সংসার ভেঙ্গে যাওয়া তানভীর কামাল তন্ময় নামের এক যুবকের কথা। তার  স্ত্রী দাবিদার রামিসা তাবাসসুম আলিনাও অভিযোগ করে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন। তবে পুলিশের সূত্র বলছে, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে এটি একটি চক্র। বিয়ে করে টাকা দাবিদার চক্র বেশ সক্রিয় রাজধানীতে। এদের টার্গেট উচ্চবিত্তঘরের যুবক, ব্যবসায়ী ও বিত্তবান মানুষ। এ ঘটনা তারই অংশ কি না অনুসন্ধানের পর জানা যাবে। 

ইতোমধ্যে স্ত্রীর নির্যাতনে স্বামী তানভীর কামাল তন্ময় রাজধানীর আদাবর থানায় গেল ১২ আগস্ট মামলাও করেছেন। কথা বলার জন্য খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না আলিনাকে। ফেসবুকে তিনি দাবি করেছেন, তিনি আত্মগোপনে আছেন।  


স্ত্রীর বিরুদ্ধে তথ্য গোপন এবং প্রতারণার মাধ্যমে বিয়েসহ নানা অভিযোগে সাধারণ ডায়েরি করার কথা স্বীকার করেছেন আদাবর থানা প্রশাসন। ম্যাপললিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিক্ষার্থী দাবি করে রামিসা তাবাস্সুম আলিনাও তানভীর কামালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে।

ঘটনা অনুসন্ধানে জানা যায়, এ বছরের মার্চ মাসে রামিসা তাবাস্সুম আলিনার সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে হয় তানভীরের। কিন্তু বিয়ের পরে তিনি জানতে পারেন তার স্ত্রী আলিনা নিজেকে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দাবি করলেও তিনি দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন। বিয়ের আগে পরিচয় দিয়েছিলেন তার বাবা ও মামা এদেশের বিশিষ্ট শিল্পপতি। এমনকি প্রতিষ্ঠিত এক শিল্পগোষ্ঠীর নামও বলেছিলেন। 

বিয়ের সময় মিথ্যা বাবা-মা সাজিয়ে উপস্থাপন করা, উচ্ছৃঙ্খল জীবন-যাপন, একাধিক নামে পাসপোর্ট, জন্ম সনদ ব্যবহার করে নানাভাবে প্রতারণা করেছেন বলে দাবি করেন তানভীর। 

তানভীর কামাল জানান, তার সন্দেহ ঘণীভূত হয় তখন, যখন আলিনার ব্যাংক একাউন্টে অস্বাভাবিক লেনদেন দেখতে পায়। পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, ধনী ও ব্যবসায়ীদের ছেলেদের ফাঁদে ফেলা আলিনার এক ধরণের পেশা। 

এ বিষয়ে আদাবর থানার উপ-পরিদর্শক এবং তদন্ত কর্মকর্তা মতিউর রহমান বলেন, তানভীর কামাল তন্ময় নামে এক ব্যক্তি তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রতারণাসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে জিডি করেন। ১২ আগস্ট মামলাও করেন। অভিযুক্ত নারীর সঙ্গে কথা বললে প্রকৃত বিষয়টি জানা যাবে বলে জানান এই কর্মকর্তা। তানভীর ও তার আত্মীয়স্বজনকে চাপে রাখতে, তাবাসসুম আলিনা (১৯) ভিডিও বার্তায় এরইমধ্যে নানান অভিযোগ করেছেন। যৌতুকের দাবিতে স্বামী নির্যাতন করেছে তাকে এমনও দাবি ঐ ভিডিও বার্তায় তিনি করেছেন।  তবে সাবেক  স্বামী তানভীর কামাল তন্ময় জানান, তার (আলিনার) এসব অভিযোগ প্রতারণা ছাড়া আর কিছুই না। এটা নিছক স্টান্টবাজি ও প্রতারণার কৌশলমাত্র। কারণ আলিনা সবসময় জোরগলায় বলেন যে, তিনি যাই করুন না কেনো আইন তার পক্ষেই যাবে।

গেল ১০ আগস্ট ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তা ছড়িয়ে দেয় আলিনা। সেখানে তিনি জানান, ফেসবুকে পরিচয়ের পাঁচ মাসের মাথায় চলতি বছরের ১২ মার্চ তন্ময়ের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। পরে ২০ মার্চ তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে তার স্বামী রাজধানীর আদাবরের একটি বাসায় নিয়ে যায়। বিয়ের তিন দিনের মাথায় তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে আট লাখ টাকা দেনা শোধের কথা বলে নিয়ে নেয় তন্ময়। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মা-বাবার মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যাওয়ায় আলিনা শ্যামলীতে নানার বাড়িতে বেড়ে উঠেছেন। চলতি বছর তার ‘ও’ লেভেল পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। আলিনার বিষয়ে আরও জানা গেছে, নানুর বাসা তার স্থায়ী ঠিকানা হওয়ায় সংশ্লিষ্ট থানায় অভিযোগ করতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তার দাবি, পুলিশ সেই অভিযোগ নেয়নি। এ বিষয়ে আলিনার বক্তব্য জানতে তার ব্যবহার করা দুটি মোবাইল নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সেগুলো বন্ধ পাওয়া যায়।

অন্যদিকে তন্ময় আমাদের জানান, ফেসবুকের মাধ্যমে আলিনার সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়। বন্ধুত্বের এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এই সম্পর্কের সূত্র ধরে আলিনাকে তানভীর কামাল তন্ময় বিয়ে করবেন বলে তার পরিবারকে জানায়। তখন তন্ময়কে তার পরিবার বলেন, আলিনার বায়োডাটা এনে দিতে। আলিনার সেই বায়োডাটায় লিখা ছিল তার বাবা একজন পিএইচডিধারী, মামা শিল্পপতি। এছাড়াও আলিনা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ব্র্যােকের শিক্ষার্থী। 

তন্ময় আরও জানান, বিবাহিত জীবনের কয়েক মাস চলে যাওয়ার পর তিনি লক্ষ্য করেন আলিনা তার বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো অনলাইন ক্লাস করছেন না। পরে এ বিষয়ে তন্ময় খোঁজ খবর নিয়ে দেখেন, আলিনা কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নয়। তাকে মিথ্যা তথ্য দিয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে দূরত্ব বাড়ে তন্ময়ের। এক পর্যায়ে আলিনার প্রতি তিনি বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেন। ভাবতে বাধ্য হন তার স্ত্রী নিছকই একজন প্রতারক।

তন্ময়ের দাবি, বিয়ের আগে রাজধানীর আদাবর এলাকায় বাসা নেন তিনি। বিয়ের পর আলিনাকে নিয়ে তিনি ওই বাসায় উঠেন। কিন্তু বিয়ের কিছু দিন পরই তন্ময় জানতে পারেন, মা-বাবার যে পরিচয় আলিনা তাকে দিয়েছিলেন তা সত্য নয়। বাবার পরিচয় ঠিক থাকলেও তার মায়ের পরিচয় আলিনা লুকিয়েছে। তন্ময় এসব বিষয়ে আলিনাকে জিজ্ঞাসা করলে আলিনা জানায়, তার মা-বাবার মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে অনেক দিন আগে। তার মা এখন যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন। তার নানার বাড়িতে সে বড় হয়েছে। তন্ময় তার স্ত্রীর বিভিন্ন ফাইল ঘেঁটে একটি জিডির কপি পান। সেই জিডি আলিনার বিরুদ্ধে তার নিজের মা আগেই করেছিলেন। যাতে আলিনার বেসামাল জীবনযাপনের ইঙ্গিত ছিল। এ বিষয়ে আলিনাকে প্রশ্ন করলে কোন সদুত্তর দিতে পারেনি-এমনটাই দাবি করেন তানভীর কামাল তন্ময়। 

আলিনার ব্যাংক একাউন্টে ৮৬ লাখ টাকার একটি লেনদেন হয়েছিল। এটি দেখে তো তানভীর কামাল তন্ময়ের সন্দেহ আরও দানা বাঁধে। এত বিশাল অংকের টাকা কোথায় থেকে এসেছে -জানতে চাইলে আলিনা কোনো উত্তর দিতে পারেনি। পরে আলিনা যেখানে চাকরি করতেন সেখানে যোগাযোগ করেও কোনো সদুত্তর পান না তন্ময়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৭ জুন আলিনা ও তন্ময়ের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়। 

তন্ময় বলেন, গত ১৭ জুন রাতের ঘটনার পর আলিনার সঙ্গে বিষয়টি পারিবারিকভাবে মিটমাট করার চেষ্টা করি। তখন আলিনা আমার কাছে তাৎক্ষণিকভাবে ৫৪ লাখ টাকা দাবি করে। এত টাকা আমার পক্ষে দেওয়া কোনোভাবেই সম্ভব না। এছাড়া সে এখন আমার পরিবারকে জড়িয়ে নানা ধরনের মিথ্যাচার করছে। এই বিয়ের সঙ্গে আমার পরিবারের কোনো সম্মতি না থাকায় সেখানেও আমি হেয় হচ্ছি। 

তন্ময় বলেন, আমার ধারণা আলিনা একটি চক্রের সদস্য। সে ওই চক্রের মাধ্যমে আমাকে ব্ল্যাকমেইলিং করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। তার এই অপচেষ্টা ও প্রতারণার কারণে গত ১১ আগস্ট আমি আদাবর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি। পরে মামলা করতে বাধ্য হই। জানতে চাইলে তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. শহীদুল্লাহ বলেন, ভুক্তভোগী ওই নারী তেজগাঁও বিভাগের কোনো থানায় সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ করেননি। তিনি অভিযোগ করলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।  তবে তন্ময়ের মামলার ব্যাপারটি পুলিশের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তারা জানেন। ইতোমধ্যে তদন্তও শুরু হয়েছে বলে জানান এক কর্মকর্তা।  
ফেসবুকে তানভীর কামাল তন্ময়ের আবেগী পোস্ট:
আমি তানভীর কামাল। গত কয়েকদিন ধরে আমার স্ত্রী আলিনা রামিসা যৌতুক এবং নারী নির্যাতনের মত গুরুতর এবং স্পর্শকাতর অভিযোগ আমার বিরুদ্ধে এনে ফেসবুকে আলোড়ন সৃষ্টির চেষ্টা করে। আমি জানি, তার ছবিগুলো দেখে সবাই তার অভিযোগগুলোকে প্রবল ভাবে বিশ্বাস করছেন কিন্তু প্রকৃত পক্ষে দিনের পর দিন মানসিক নির্যাতন এবং প্রতারণার শিকার হয়েছি আমি। 

আপনাদের সবার মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে আমি কেনো এতদিন কিছু বলিনি বা করিনি। আসলে আমি ১৭ ই জুনের ঘটনার পরে মানসিকভাবে অত্যন্ত ভেঙে পরি এবং আতঙ্কিত হয়ে যাই। আমি আমার বাসা থেকে খালি হাতে বের হয়ে যাই। যার কারণে আমি বারবার আলিনার কাছে সময় চাই পুনরায় সংসার শুরু করার পূর্বে। কিন্তু আলিনা আমাকে প্রচন্ডভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে, আমার মানসিক অবস্থা বিবেচনা না করেই বারবার হুমকি দিতে থাকে আমার এবং আমার পরিবারের সম্মান হানি করার জন্য। যা এখন সে করছে আসলে। 

গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের পরিচয় হয়।  আমি MBA শেষ করে ৪ বছর যাবত চাকরিরত ছিলাম। এবং বেশ কিছু দিন যাবত আমি বিয়ের জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। তখন আলিনা নিজেকে খুবই আকর্ষণীয় এবং গ্রহণযোগ্য বায়োডাটার মাধ্যমে আমার কাছে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। আমাদের মধ্যে একটি গভীর প্রেমের সম্পর্ক সৃষ্টি হয়। এবং তাকে বিয়ে করার বিষয়ে সে আমাকে প্রলুব্ধ করতে থাকে। 

পরবর্তীতে আমার পরিবারের কাছে আমি আলিনা কে বিয়ের বিষয়ে জানালে তারা বিস্তারিত জানতে চায়। এবং ফেইসবুকের মাধ্যমে এত অল্প সময়ের পরিচিত একটি মেয়েকে বিয়ের বিষয়ে তীব্র আপত্তি করে।

আলিনা আমাকে এতটাই মোহগ্রস্ত করে তুলেছিল যে আমার অসম্ভব পীড়াপীড়ি এবং জেদ এর কারণে বাধ্য হয়ে আমার পরিবার এই বিয়েতে মত দেয়। আমি যেহেতু আমার পরিবারের অনাগ্রহে ও ইচ্ছার বিরুদ্ধে এই বিয়ে করছি সেজন্য আলিনা আমাকে বিয়ের আগে থেকেই আলাদা বাসা নেয়ার জন্য ভীষণ ভাবে পীড়াপীড়ি করতে থাকে। আলিনার চাপাচাপির কারণেই আমি বিয়ের পর থেকে আলাদা বাসায় থাকতে শুরু করি। 

কিন্তু তার সাথে সংসার শুরু হওয়ার পর থেকেই তার মিথ্যা ও প্রতারনা গুলো আমার সামনে ধরা পরতে শুরু করে। সে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে আর্কিটেকচার এ পরে, যথেষ্ট পর্দানশিন ভাবে একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পপরিবারের রক্ষণশীল পরিবেশের মধ্য দিয়ে সে বড় হয়ে উঠেছে, তার আপন মামা একজন বিখ্যাত শিল্পপতি এসব তথ্য যা সে বিয়ের আগে আমাকে দিয়েছিল সেগুলো যে সব  মিথ্যা তার প্রমাণ আমি হাতে পাই। এক পর্যায়ে তার কিছু মিথ্যা সে নিজেই স্বীকার করে নেয় যার প্রমাণ আমার কাছে আছে। আমার সন্দেহ গুরুতর হয় যখন আমি তার ফোনে তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের লক্ষ লক্ষ টাকার লেনদেন গুলো দেখতে পাই। আমি তাকে এ নিয়ে বারবার জানতে চাইলে সে উত্তেজিত হয়ে পরে। এক পর্যায়ে আমার ল্যাপটপ ভেঙে ফেলে এবং ছুরি নিয়ে এসে আমাকে হুমকি দিতে থাকে যেনো এসব নিয়ে কথা না বাড়াই আর বাইরে প্রচার না করি। আমি তার হাত থেকে ছুরিটা ফেলে দিতে সক্ষম হই। এরপরে সে বটি নিয়ে আসে। তখন বটি টা ফেলানোর জন্য আমাদের মধ্যে হাতাহাতি হয় এবং আমরা দুইজনই আলমারির উপর পরে যাই এবং আলমারির গ্লাস ভেঙে আমরা ২ জনই আঘাত পাই, যেটাকে সে পরিকল্পিত ভাবে এখন নারী নির্যাতন বলে সবার দৃষ্টি এবং সহানুভূতি আদায় করছে। আমাদের এসব হাতাহাতি ও হইচই এর শব্দ প্রতিবেশীরা পেয়ে পুলিশ ডেকে আনে কিন্তু পুলিশ এসে আমাদের ২ জনকেই আহত অবস্থায় দেখেন এবং ২ জনের বক্তব্যই শুনে এটাকে নিজেদের মধ্যেই মিটিয়ে ফেলতে বলে কাউন্সেলিং করে চলে যান। 

আমি তার বিরুদ্ধে কোনো আইনানুগ ব্যাবস্থা তখনও পর্যন্ত নেই নাই। এমন কি বিষয়টি  আমি পরিবারকেও জানাতে সাহস পাচ্ছিলাম না। কারণ এই বিয়েতে আমার পরিবারের স্বতস্ফুর্ত মত ছিলোনা। এবং আমি মানসিকভাবে এতটাই হতবিহ্বল হয়ে পরি যে তখনও পর্যন্ত আমি কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলাম না। আমি তার কাছে শুধু সময় চেয়েছিলাম আমার আতঙ্ক এবং মানসিক চাপ কাটানোর জন্য। কিন্তু বাসা ছাড়ার পরেও সে প্রতিনিয়ত আমাকে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে তার কাছে ফেরার জন্য। আমি বাসায় ফিরে না গেলেও তার অনুরোধে তার সাথে আমি একাধিক দিন বাইরে গিয়েছি, দেখা করেছি, তার সাথে সময় কাটিয়েছি। তবে সে ওইসব দেখা-সাক্ষাতে আমাকে সরাসরি ৫০ লক্ষ টাকা দেয়ার জন্য দাবি করে এবং এই টাকা দিতে না পারলে সে আমার বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা ও নানাবিধ আইনি এবং সামাজিক  হয়রানি করবে বলে হুমকি দিতে থাকে। আমি তার এই অব্যহত অনৈতিক হুমকিতে আরো ভিতোগ্রস্ত হয়ে পরি। একটি পর্যায়ে এসে লক্ষ করি যে সে ফেসবুকের মাধ্যমে আমাকে এবং আমার পরিবারকে অসম্মানিত করার জন্য কল্পিত কাহিনী তৈরি করে তার আহত হওয়ার ছবি দিয়ে মানবিক আবেদন সৃষ্টি করার ঘৃণ্য প্রয়াস চালায়। এবং সে আমাকে আবার দেখা করার জন্য অনুরোধ করতে থাকে এবং আমি দেখা করলে একই ভাবে ৫০ লক্ষ টাকা দেয়ার জন্য আরো বেশি চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। এই টাকা দেয়ার সামর্থ্য আমার নাই সে ভালো করেই জানে। সে আমাকে কুপরামর্শ দেয় যে, "তোমার বাবা অত্যন্ত সম্মান জনক একটি চাকরি করে, তোমাদের পরিবারের অনেক সামাজিক সম্মান রয়েছে, আমি যে তোমাকে ব্লাকমেইল করতে পারি এটা জানলে নিঃসন্দেহে তারা এই টাকাটা দিতে বাধ্য হবে"। কিন্তু এই কুপরামর্শে আমার মন সায় দেয়নি এবং আমার পরিবারকেও আমি কিছু জানাইনি। 

গত ২৪ এ জুলাইতেও আমরা একসঙ্গে ঘুরেছি ফিরেছি, সে আমার সঙ্গে অত্যন্ত হাসি খুশি হয়ে মিশেছে, ফেসবুকে সে আমাদের বিভিন্ন সময়ের আনন্দঘন ছবিগুলো পোস্ট করেছে। আবার সে ভয়ানক কঠিনভাবে পেশাদার প্রতারকের মত আমাকে দ্রুত ৫০ লক্ষ টাকা দেয়ার জন্য হুমকি প্রদান করেছে। নাহলে সে তার আহত হওয়ার ছবি এবং বিভিন্ন কল্পিত কাহিনী দিয়ে সামাজিক মাধ্যম সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলক্ট্রনিক মিডিয়াতে ব্যাপক ভাবে ভাইরাল করার হুমকি দেয়। আমি তার কাছে বারবার আকুতি করে জানাই যে এই টাকা দেয়ার সামর্থ্য আমার নাই এবং আমার পরিবারকেও এটা জানানো সম্ভব না। আমি জানতে চাই তার এত টাকা কেনো প্রয়োজন। সে আমাকে জানায় তার বিভিন্ন সময়ে প্রচুর অর্থ লোন করা আছে , যা শোধ করার জন্যই এই টাকাটা প্রয়োজন। 

সে আমাকে ৮ লক্ষ টাকা দেয়ার যেই কথাটা মিডিয়াতে বলছে সেটি - সত্য। সে আমার ব্যাংক একাউন্টে ৮ লক্ষ টাকা ট্রান্সফার করেছিল।তবে এর পিছনে যে ঘটনা সেটি হলো আলিনা বিয়ের পরপরই আমাকে বলে যে, বিয়ের অনুষ্ঠানের ব্যয় নির্বাহের জন্য তার বাবাকে তার স্বাক্ষর করা কিছু ব্লাঙ্ক চেক দেয়া আছে। তার বাবার উপর তার কোনো বিশ্বাস নাই। তার বাবা তার একাউন্ট থেকে সব টাকা তুলে আত্মসাৎ করতে পারে সেজন্য সে আমার অ্যাকাউন্টে ৮ লক্ষ টাকা ট্রান্সফার করে। এই টাকা পরবর্তীতে তার চাহিদা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে তাকে দিয়েও দেয়া হয়। 

তার কাছে যে আমি ৭০ লক্ষ টাকা যৌতুক চেয়েছি, এটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও দুরভিসন্ধিমূলক বক্তব্য। সেই দাবি করছে যে তার পরিবার বলতে তেমন কেউ নেই, সেখানে তার কাছে ৭০ লক্ষ টাকা আমি চেয়েছি এই বক্তব্য সম্পূর্ণ অসংগতিপূর্ণ। তাছাড়া আমার যদি অর্থলোভ থাকতো, অনেক ধণাঢ্য  পরিবারে বিয়ে করার সুযোগ আমার ছিলো, কিন্তু আমি কখনোই সেদিকে প্রলুব্ধ হয়নি। এছাড়া যারা সচেতন তারা সবাইই জানেন ইউকেতে পড়তে যাওয়ার জন্য ৭০ লাখ টাকার প্রয়োজন হয়না। 

একজন নারী যখন তার অসহায়ত্ব, তার কষ্ট  আকুল আবেদন আকারে তুলে ধরে তখন বিবেক বান মানুষ সবাই সহানুভূতিশীল হয়। কিন্তু এই মেয়েটি জঘন্য প্রতারনা করে আমাকে বিয়ে করেছে এবং মানসিক ও শারীরিক ভাবে যে প্রচন্ড কষ্ট ও যন্ত্রণা আমাকে দিয়েছে এবং এখনও দিচ্ছে সেটি ভাষায় অবর্ণনীয়। আমার পরিবারের মান সম্মান নিয়ে সে প্রচন্ডভাবে ধ্বংসাত্মক কাজে লিপ্ত হয়েছে। কিন্তু তার এসব কার্যকলাপ কেউ না জানার কারণে উল্টো তার প্রতিই সহানুভূতিশীল হচ্ছে। 


যেই মেয়ের জন্মদাতা পিতা মেয়ের সম্পর্কে প্রচন্ড ভাবে ক্ষুব্ধ এবং তাকে তিনি স্বীকারও করতে চান না; যেই মেয়ের গর্ভধারিনী মা গত বছর তার উশৃঙ্খল জীবন যাপন ও বখে যাওয়ার প্রেক্ষিতে নিজে থানায় জিডি পর্যন্ত করেছেন; যে মেয়ে তার একাধিক জন্ম সনদ , পাসপোর্ট ও বিভিন্ন ডকুমেন্টে ভিন্ন ভিন্ন জন্ম তারিখ ও নাম ব্যাবহার করেছে; দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করে যে নিজেকে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্কিটেকচারের ছাত্রী হিসেবে পরিচয় দিত, আইডি ব্যবহার করতো, ফেসবুকে এই পরিচয় দিয়ে সে O'level ও A'level এর শিক্ষার্থী পড়ানোর জন্য টিউশনি খুঁজতো। সে এখন নিজেকে নিষ্কলুক দাবি করে আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি ও নিপীড়ন করার অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমার চরিত্র হরণ করার চেষ্টা করছে, আমার পরিবারের সুনাম ভূলন্ঠিত করার চেষ্টা করছে। আমি আইনের প্রতি অত্যন্ত শ্রদ্ধাশীল। তার এসকল  প্রতারনা ও ঘৃণ্য প্রচেষ্টার জন্য আমি আইনি সহায়তা চেয়েছি। 

আমি বিবেকবান মানুষের কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি, এই ঘৃণ্য প্রতারক আলিনা তাবাসসুম রামিসার কথা সরল বিশ্বাসে বিশ্বাস না করে অনুসন্ধানী দৃষ্টি দিয়ে দেখবার জন্য। আমার মত যেনো আর কোনো মানুষ এরূপ ভয়ানক প্রতারক ও জঘন্য মেয়ের প্রতারণার ফাঁদে পরে বিপর্যস্ত না হয়, সেজন্য সচেতন থাকেন।