বুধবার,

০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

|

মাঘ ১৮ ১৪২৯

XFilesBd

ব্রেকিং

বিএনপির বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে সতর্ক থাকবে নেতাকর্মীরা: কাদের মানুষ বেশি দেখানোর জন্য পল্টনে সমাবেশ করতে চায় বিএনপি: কৃষিমন্ত্রী গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন: জানুয়ারিতে ভোট; চলতি সপ্তাহেই তফসিল দেশ অস্থিতিশীল করতে চাইলে ভুল করবেন: বিএনপির উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাস্তায় সমাবেশের অনুমতি পাবে না বিএনপি: ডিএমপি কমিশনার

আরও শক্তিশালী জার্মান সেনা চায় ন্যাটো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:৩১, ২ ডিসেম্বর ২০২২

আরও শক্তিশালী জার্মান সেনা চায় ন্যাটো

ইউক্রেন যুদ্ধে জার্মানির অবদানের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন ন্যাটো-প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ। গতকাল বৃহস্পতিবার বার্লিনে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত সম্মেলনে যোগ দিয়ে ন্যাটো-প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ বলেছেন, ন্যাটো চায় আরো শক্তিশালী জার্মান সেনা। বস্তুত, ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরেই প্রতিরক্ষা খাতে বিপুল পরিমাণ বাজেট বাড়িয়েছিল জার্মানি। জার্মান সেনার সংস্কারের কথাও বলা হয়েছিল। জার্মানির ওই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন স্টলটেনবার্গ।

স্টলটেনবার্গ বলেছেন, ''জার্মানি যেভাবে ইউক্রেনকে সামরিক, মানবিক এবং অর্থনৈতিক সাহায্য করছে, তা প্রশংসনীয়। ইউক্রেন যুদ্ধে জার্মানির সাহায্য কতটা সাহায্য করছে, তা আমরা দেখতে পাচ্ছি।''
ন্যাটো-প্রধান জানেন, এই সাহায্যের জন্য দাম গুণতে হচ্ছে বিশ্বের বেসামরিক নাগরিকদের। জিনিসের দাম ঊর্ধ্বমুখী। খাবার, বিদ্যুতের দাম বাড়ছে। কিন্তু মনে রাখতে হবে, ইউক্রেনের মানুষ রক্তের বিনিময়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। যার দাম টাকার অংকে গোণা যায় না। গোটা বিশ্ব এখন ইউক্রেনের পাশে না দাঁড়ালে ভবিষ্যতে আরো বড় সমস্যার সামনে দাঁড়াতে হবে।

রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণের পরেই প্রতিরক্ষা খাতে বাজেট অনেকটা বাড়িয়ে দেয় জার্মানি। সেনা সংস্কারের কথাও বলা হয়। জার্মানির এই অবস্থানকে এদিন স্বাগত জানিয়েছেন স্টলটেনবার্গ। আমেরিকা-সহ একাধিক ন্যাটোর দেশ দীর্ঘদিন ধরে জার্মানিকে শক্তিশালী সেনাবাহিনী তৈরির জন্য অনুরোধ করছিল। সেনাখাতে অর্থ বাড়ানোর কথাও বলা হয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকে জার্মানি কখনোই সে পথে হাঁটেনি। জার্মানি কেবলমাত্র আত্মরক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সেনা তৈরির পক্ষে সওয়াল করেছে। সম্প্রতি জার্মানি সে রাস্তা থেকে সরে প্রতিরক্ষা খাতে বাজেট বাড়িয়েছে।

শলৎসের ক্ষমতায় আসা এবার সহজ ছিল না। দীর্ঘ আলোচনার পর জোট সরকার তৈরি হয়েছে। কিন্তু তারপরেও শলৎস যে প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায় সংস্কারের পথে হাঁটতে পেরেছেন, তার জন্য তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্টলটেনবার্গ।

কিছুদিন আগে পোল্যান্ডকে একটি প্যাট্রিয়ট মিসাইল সিস্টেম দিতে চেয়েছিল জার্মানি। অত্যাধুনিক এই মিসাইল সিস্টেম পৃথিবীর অন্যতম শক্তিশালী এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম। পোল্যান্ডে ইউক্রেনের মিসাইল ভুলবশত চলে যাওয়ার পরে জার্মানি পোল্যান্ডকে এই সিস্টেম দিতে চেয়েছিল। কিন্তু পোল্যান্ড জার্মানির কাছে আবেদন করে, তাদের বদলে ওই মিসাইল সিস্টেম ইউক্রেনকে দেওয়া হোক। ইউক্রেনও জার্মানির কাছে প্যাট্রিয়ট মিসাইল চেয়েছিল। কিন্তু ন্যাটোর সম্মতি ছাড়া জার্মানি ন্যাটোর বাইরের কোনো দেশে প্যাট্রিয়ট মিসাইল দিতে পারে না। এদিন এবিষয়ে সরাসরি কোনো কথা বলেননি স্টলটেনবার্গ এবং শলৎস। তবে ইউক্রেনকে আরো অস্ত্র দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে।